ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসঃ পিপল পার আওয়ার পর্বঃ ৩য়

people-per-hour

অনলাইন মার্কেটপ্লেস তথা ক্রাউডসোর্সিং প্লাটফর্মে নতুন কিন্তু দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠা পিপল-পার-আওয়ারের পূর্বের দুটি পর্বে (প্রথম পর্ব / দ্বিতীয় পর্ব) আলোচিত হয়েছে পিপিএইচের ইতিহাস তথা কতিপয় বৈশিষ্ঠ, পরিসংখ্যান, ফ্রীল্যন্সারদের জন্য কি কি কাজ পাওয়া যাবে এবং কারা এই কাজ করতে পারবে ইত্যাদি বিষয়সমূহ।

তৃতীয় পর্বে আলোচনা করা হবে পিপিএইচের যাবতীয় খুঁটিনাটি অংশের বর্ননা, আমরা পিপিএইচ ওয়েবসাইটের মধ্যে অ্যাকাউন্ট খোলা বা নিবন্ধন থেকে শুরু করে বায়ারদের সাথে যোগাযোগ এবং লেনদেনের বিষয়গুলি বিস্তরভাবে আলোচনা করবো। এই পর্ব এবং পরবর্তী পর্বটি টেকনিক্যাল শব্দভান্ডারে সজ্জিত তাই একেবারে নতুন যারা আছেন তাদের পিপিএইচ কি তা বোঝার সুবিদার্থে, পুর্বের প্রকাশিত দু’টি পর্ব পড়বার জন্য অনুরোধ করব।

প্রাথমিকভাবে পিপিএইচের ওয়েব ইন্টারফেসকে আটটি খন্ডে ভাগ করা যায়, সম্পুর্ন প্রকৃয়াটি সরলীকরনের নিমিত্তে, আজকের পর্বে নিম্নক্ত চারটি বিষয়ে সংক্ষেপে আলোকপাত করা হলো,
১. সাইন আপ/নিবন্ধন
২. টপ নেভিগেশান বার
৩. প্রোফাইল এডিটিং ও প্রোফাইল কমপ্লিটনেস
৪. ড্যাশবোর্ড

সাইন আপ/নিবন্ধন

www.peopleperhour.comএই ঠিকানা যেকোনো ব্রাউসারের অ্যাড্রেসবারে বসিয়ে দিয়ে এন্টার চেপে দিলেই আপনার চোখের সামনে পিপিএইচের জগত উন্মুক্ত হয়ে যাবে। উপরের ডান দিকে অন্যান্য সকল ওয়েবসাইটের মতোই Sign Up এবং Login এর লিঙ্ক দেখতে পাবেন। পিপিএইচে Facebook অথবা LinkedIn অ্যাকাউন্ট ব্যাবহার করেও নিবন্ধন করা সম্ভব তবে এসব যেহেতু থার্ড-পার্টি অর্থাৎ নিয়ামক হিসেবে ব্যাবহৃত হবে, সেই ক্ষেত্রে আপনার Facebook বা LinkedIn অ্যাকাউন্টে কোনো সমস্যা হলে পিপিএইচের সাইটে লগিন করতে সমস্যা হতে পারে, এই কারনেই, সাধারন ও সনাতন পদ্ধতিতে নিবন্ধন করাই বঞ্ছনীয়, অতএব Sing Up লিঙ্কে ক্লিক করেই যেই বক্সটি পর্দায় ভেসে উঠবে সেখান থেকে Sign up with your email address এ ক্লিক করে নিন।

 

নাম, পাসওয়ার্ড ইত্যাদি ঘর পুরণের পরেই নীচের তিনটি অপশনবক্স বা রেডিওবাটন থেকে Sell services সিলেক্ট করে Sing Up এ ক্লিক করুন। নিবন্ধন শেষেই আপনার Email চেক করুন, পিপিএইচ থেকে যেই বার্তা আসবে তা খুলে অ্যাকাউন্ট অ্যাক্টিভ করে নিন। এই হচ্ছে সহজ প্রকৃয়ায় সাইন আপ বা নিবন্ধিত হবার কৌশল।

 

টপ নেভিগেশান বার

প্রায়সই উন্নতমানের ওয়েবসাইটে টপ নেভিগেশান লক্ষ্যনীয়, পিপিএইচের টপ নেভিগেশান বার তখনই দেখতে পাবেন যখন আপনার সাইন আপ ধাপ পূর্ন হয়েছে, নিবন্ধনের পরেই এই নেভিগেশান বারের একেবারে ডান দিকে দেখতে পাবেন চারটি আইকন সেটের, Customer Support,  Favorites,  Notifications,  WorkStreams যথাক্রমে প্রশ্নবোধক চিহ্ন, তারকা, ক্যালেন্ডার ও খামের আইকনে প্রদর্শিত।

 

Customer Support এ ক্লিক করলে আরেকটি ট্যাব ওপেন হবে, যেখানে গাইডলাইন, কমিউনিটি এবং আইডিয়া শেয়ার করার লিঙ্ক দেয়া থাকবে, এইখানে আপনার পিপিএইচ সংক্রান্ত যাবতীয় সকল তথ্যের ভান্ডার মিলবে, আপনার যেকোনো ধরনের জিজ্ঞাসা আপনি সরাসরি পিপিএইচের সাপোর্টে বলতে পারবেন এইখান থেকেই। T&C অর্থাৎ টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশান এখানেই পাবেন, যা পিপিএইচ পরিচালনার সকল নিয়ম-কানুন বিস্তরভাবে লেখা থাকবে। উপরেই সার্চ বার পাবেন, এটার সাহায্য নিতে পারেন যখন তখন।

 

Favorites এ জমা হয় আপনার প্রোফাইল থেকেযাদের স্টার দিয়েছেনঅথবা যেসব বন্ধু ফ্রীল্যান্সারদের প্রোফাইল এন্ডোর্স করেছেনতাদের তালিকা, অর্থাৎ আপনি কোনো বায়ার বা সেলারকে নিজের প্রিয়-তালিকাভুক্ত করে রাখতে পারবেন, যাতে করে তাদের আপডেট সর্বদা চোখের সামনে নিমিশেই পেতে পারেন। আপনি পিপিএইচে পোস্ট করা কোনো জবকেও স্টার দিয়ে রাখতে পারেন, অর্থাৎ Favorites অনুসন্ধান করবার কাজেও ব্যাবহার করা যাবে। এর মাধ্যমে আপনি আওয়ার্লিও পছন্দের তালিকায় রাখতে পারবেন, সর্বমোট চার প্রকারের তালিকা Favorites এর অন্তর্গত; Hourlies, People, Jobs, Collections.

 

Notifications হচ্ছে নোটিশবোর্ড, এখানে আপনাকে যদি কেউ এন্ডোর্স বা স্টার দিয়ে থাকে তার নোটিশ প্রদর্শিত হবে, পিপিএইচে একটি প্রোফাইলে স্টার দেয়া সম্ভব, যার মাধ্যমে সেই স্টারকৃত আওয়ার্লি বা মানুষটি (বায়ার কিংবা সেলার) আপনার Favorites এ যোগ হয়ে যাবে, একই প্রকৃয়ায় একজন সেলারের প্রোফাইল এন্ডোর্স করা সম্ভব, এর মানে আপনি সেলারের কাজ সম্পর্কে অবগত এবং তাকে পাবলিকলি একনলেজ করছেন,এখন আপনার প্রোফাইল আর আওয়ার্লি দু’টোতেই স্টার দেয়া সম্ভব, তবে এন্ডোর্স করা সম্ভব শুধু আপনার প্রোফাইলকেই।

 

WorkStreams পিপিএইচের কপিরাইট করা একটি বিশেষ্য, এর মানে কাজের স্রোতধারা, সহজ ভাষায় কাজের দলিল। আপনি যার কাজ করছেন তার কাছ থেকে যেকোনো আপডেট আপনার ওয়ার্কস্ট্রিমে জমা হবে, ওয়ার্কস্ট্রিম নিয়ে পরবর্তী পর্বে একটি অনুচ্ছেদ তৈরী করা হবে

 

এই টপ নেভিগেশান বারের চারটি আইকনের ডান দিকেই আপনার ছবি থাকার কথা, যেহেতু প্রোফাইল তৈরী করা নেই তাই ওখানে সিলুয়েট মানুষের আবতার দেয়া থাকবে, ওটার উপরে ক্লিক করলে খুব গুরুত্বপূর্ন একটি কালো বাক্স খুলে যাবে, যেখানে আপনার প্রোফাইল নামকে Hi বলে সম্বধন করা হবে। এই বক্সটির ডান দিকেই Profile Completeness নামে একটি গোলক থাকবে, এই গোলকের মান এখনো শুন্য, কারন আপনার প্রোফাইল কমপ্লিট করা হয় নি, প্রোফাইল কমপ্লিট করা নিয়ে আরেকটি প্যারায় আলোচনা করা হয়েছে।

 

একই কালো বক্সটির মধ্যে আপনার নামের ঠিক নীচে আপনার শহরের নাম আর বাংলাদেশের পতাকা রয়েছে, এর পরেই আছে কলমের আইকনযুক্ত এডিট প্রোফাইল লেখা একটি লিঙ্ক, এই লিঙ্ক এ ক্লিক করেই আপনার প্রোফাইলের পূর্ণতা দান করা সম্ভব হবে।
কালো বক্সটির নীচে আরো চারটি লিঙ্ক রয়েছে,
Dashboard, Payments, My Buyers Activity, My Seller Activity.

 

ড্যাশবোর্ড ও পেমেন্টস নিয়ে বিস্তর আলোচনা হবে একটু পরেই, মাই বায়ার অ্যাক্টিভিটি বা মাই সেলার অ্যাক্টিভিটি হচ্ছে আপনার চলতি কাজের বিবরনী, অর্থাৎ যদি কোনো কাজ জিতে থাকেন তবে তার প্রগ্রেস এবং হিসাব-নিকাসের ইতিহাস থাকবে এখানে সংরক্ষিত, মনে রাখবেন আপনি ফ্রীল্যান্সার বিধায় আপনার মাই সেলার অ্যাক্টিভিটিই কাজে আসবে।

 

প্রোফাইল এডিটিং ও প্রোফাইল কমপ্লিটনেস

প্রোফাইল এডিট করতে আপনাকে টপ নেভিগেশান বারের একেবারে ডান দিকে আপনার আবতারের ছবির উপরে ক্লিক করতে হবে, এতে একটি কালো বক্সের উদয় হবে, সেখানে আপনার নামের দু’লাইন নীচেই দেখতে পাবেন Edit Profile নামের লিঙ্ক, ক্লিক করতেই একটি পাতায় আপনাকে নিয়ে যাওয়া হবে, যেখানে একটি ফর্ম থাকবে, নাম, কাজের ধরন, অবস্থান, ফোন নম্বর, ঘন্টা প্রতি কত করে পারিস্রমিক নেবেন ইত্যাদি নানাবিধ সরল জিজ্ঞাসা থাকবে, আপনি খুব ছিমছাম ভাষায় পূরন করে যাবেন এক একটি শুন্যস্থান, মনে রাখবেন যতটা সংক্ষেপে গুছিয়ে, কোনো গলদ ছাড়া ইংরেজী লিখতে পারবেন তত আপনার প্রোফাইলের দাম বেশি হবে। স্কিল ঘরে আপনি দশটি স্কিল সেট যুক্ত করতে পারবেন, আপনি কি ধরনের কাজ করেন সেই সম্পর্কে About you এর জন্য বরাদ্দ করা ঘরে। আপনার কাজের কিছু স্যাম্পল, ছবি, পিডিএফ লেখার ডকুমেন্ট ফাইলের স্ন্যাপ আপ্লোড করবেন পোর্টফোলিওতে, এই বিভাগের নীচে একটি ড্রপ-জোন আছে ওখানে ছবি ড্র্যাগ করে ছেড়ে দিলেই হবে। খুব ভালো কাজগুলির স্যাম্পল দেবার চেষ্টা করবেন। ইচ্ছে করলে আপনার প্রোফাইল Facebook এও শেয়ার করতে পারেন একটি চেক বক্সে ক্লিক করে। একটি গুরুত্বপূর্ন ব্যাপার মাথায় রাখুন, আপনার প্রোফাইল পিকচার খুব প্রাণবন্ত ও হাস্যোজ্জ্বল হতে হবে, পাসপোর্ট সাইজের মক শট কোনো ভাবেই দেয়া যাবে না।

 

প্রোফাইল কমপ্লিটনেসের জন্য কতগুলো ধাপ পার হতে হবে, আপনার প্রোফাইল যত বেশি কপ্লিট বা পরিপূর্ন থাকবে তত বেশি আপনাকে বিশ্বস্ত ও প্রতিষ্ঠিত দেখাবে, এতে বায়ার বা ক্লায়েন্ট আপনার উপরে আস্থা রাখতে পারবে, যা ফ্রীল্যান্সারদের জন্য মনে রাখবার মতো একটি বিষয়।
চারটি ধাপে উন্নিত হবার পরেই কেবল ১০০% প্রোফাইল কমপ্লিটনেস আসবে, এর মধ্যে দু’টি ভ্যারিফিকেশান এবং দু’টি কানেকশন। আপনার যদি কোনো ক্রেডিট কার্ড, পাইনিঈর মাস্টার কার্ড, স্ক্রীল মানিবুকার্স ইত্যাদি থাকলে তা থেকে আপনি আপনার ক্রেডিট কার্ড ভ্যারিফাই করতে পারেন, না থাকলে কোনো সমস্যা নেই।

 

ইমেইল ভ্যারিফিকেশান হচ্ছে নিবন্ধনের পরে আপনার ইনবক্সে পিপিএইচ থেকে দেয়া ইমেইলের ভেরিফিকেশান লিঙ্কে ক্লিক করলেই যা হবে সেটা, স্বভাবত এটি সবার ক্ষেত্রেই করা থাকে।
আপনার
Facebook প্রোফাইল থেকে পিপিএইচের অ্যাপ চালু করলে আপনার কমপ্লিটনেস বাড়বে, একই প্রকৃয়ায় LinkedIn এ আপনার প্রোফাইল থাকলে সেটার সাথে সংযুক্তি স্থাপনের মাধ্যমে অনেকটাই বাড়িয়ে নিতে পারেন আপনার প্রোফাইল কমপ্লিটনেস।

 

ড্যাশবোর্ড

টপ নেভিগেশান বারের একেবারে উপরের ডানে আপনার ছবির উপরে ক্লিক করলে কালো বক্সের মধ্যে থাকে একটি লিঙ্ক যার নাম ড্যাশবোর্ড, এই ড্যাশবোর্ড হচ্ছে আপনার কাজের প্রাণকেন্দ্র, এখানে ক্লিক করলেই এমন একটি পাতা চলে যাবেন যেখানে My Pending Actions বা আপনার যেই যেই কাজ করা এখনো বাকি আছে তথা যতগুলো না পড়া মেসেজ আছে তা দেখতে পাবেন, এখানে ডান দিলে Useful Link নামের একটি চিকন নেভিগেশান পেন আছে, ওখানে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ন আর আপনার জন্য সহায়ক কিছু লিঙ্ক পাওয়া যাবে, যেমন আপনার পোস্ট করা আওয়ার্লি, আপনার প্রোফাইলের লিঙ্ক, সেটিংস এর লিঙ্ক, ইনবক্স ইত্যাদি বহু কিছু।

 

আগামী পর্বে পিপিএইচের মোট আটটি অংশের বাদবাকি চারটি খন্ড নিয়ে আলোচনা করা হবে,
৫. সেটিংস, ৬. ওয়ার্কস্ট্রিম, ৭. এন্ডোর্স ও স্টার, ৮. আওয়ার্লি।

 লেখকঃ শোয়েব মোহাম্মাদ

 

One thought on “ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসঃ পিপল পার আওয়ার পর্বঃ ৩য়

Comments are closed.

সার্চ করুন

web hosting

জনপ্রিয় লেখাসমূহ

Find us on facebook

Scroll to top