FreelancerStory.Com

ইন্টারনেটে কাজ করুন ঘরে বসে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করুন

ফাইভার-এ শুরু হোক ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার – ২য় পর্ব

On September 14, 2016, Posted by , In ফাইবার, With Comments Off on ফাইভার-এ শুরু হোক ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার – ২য় পর্ব

ফাইভার এ সাইনআপঃ

ফাইভার-এ আপনার সার্ভিস সেল করতে হলে প্রথমেই একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে। সেজন্য ফাইভার হোমপেজ থেকে Join অথবা Start Selling বাটনে ক্লিক করুন। ফলে যে পপ-আপ বক্স আসবে সেখান থেকে ইমেইল অ্যাড্রেস দিয়ে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হলে সেটি Enter your email ফিল্ডে টাইপ করুন। চাইলে ফেসবুক, গুগল অথবা লিঙ্কড-ইন প্রোফাইল দিয়েও ফাইভার-এ সাইন-আপ করা যায়। যাইহোক, ইমেইল অ্যাড্রেসটি টাইপ করার পর CONTINUE বাটনে ক্লিক করুন। ফলে নতুন যে পপ-আপ বক্স আসে সেখানে একটি ইউজার নেম ও পাসওয়ার্ড টাইপ করে JOIN বাটনে ক্লিক করুন। এক্ষেত্রে যে পেজ আসবে সেখানে আপনার ফাইভার অ্যাকাউন্টটি অ্যাক্টিভেট করার জন্য প্রদত্ত ইমেইলের ইনবক্স চেক করতে বলা হয়। সুতরাং আপনার ইমেইলের ইনবক্সে ফাইভার থেকে যে মেইল পাঠানো হয়েছে সেটি খুলে ACTIVATE YOUR ACCOUNT-এ ক্লিক করে আপনার ফাইভার সাইন-আপ সম্পূর্ণ করুন।

fiverr2-01

প্রোফাইল এডিট এবং অ্যাকাউন্ট ও অন্যান্য সেটিংসঃ

ফাইভারে সার্ভিস সেল করার অর্থাৎ গিগ তৈরির আগেই কিছু বেসিক অ্যাকাউন্ট সেটিংস এবং প্রোফাইল কমপ্লিট করে নিতে হবে।

 


Fiverr Tutorial Part 03 -How to create a fiverr account(01)


 
১। পাবলিক প্রোফাইল সেটিংসঃ

ফাইভারে লগড-ইন থাকা অবস্থায় ইউজারনেম ডাউন-অ্যারো থেকে সেটিংস > পাবলিক প্রোফাইল সেটিংস –এ ক্লিক করুন। ফলে যে পেজ আসবে সেখান থেকে নিম্নোক্ত সেটিংসগুলো সম্পন্ন করুন-

ক) প্রোফাইল ফটোঃ ফাইভারে আপনার পরিচিতিমূলক ছবিটি সংযুক্ত করার জন্য CHOOSE PHOTO বাটনে ক্লিক করে পিসি ডাইরেক্টরি থেকে তা নির্বাচন করে আপলোড করুন। উল্লেখ্য, ছবিটি ফাইভার পাবলিক প্রোফাইলের পাশাপাশি আপনার স্বতন্ত্র গিগ পেজেও প্রদর্শিত হবে।

খ) অনলাইন স্ট্যাটাসঃ ফাইভারে লগ-ইন করার পর সাধারণত কত সময় আপনি অনলাইন থাকবেন তা এখান থেকে নির্দিষ্ট করে দিতে পারেন। তবে এর বিশেষত্ব হচ্ছে বায়ার কোনো সার্ভিস সার্চ করার সময় যদি “অনলাইন” ফিল্টার ব্যবহার করে এবং ঐ সময় যদি আপনি অনলাইন থাকেন তবে উক্ত সার্ভিস সংক্রান্ত আপনার গিগটি প্রদর্শিত হবে। এক্ষেত্রে GO ONLINE FOR – 1 HOUR/ 1 DAY/ 1 WEEK/ FOREVER –এ চারটি অপশনের যেকোনো একটি নির্বাচন করতে পারেন।

গ) ল্যাংগুয়েজ স্কিলঃ I CAN COMMUNICATE IN –এর অধীনে ইংরেজিসহ আর কোন কোন ভাষায় আপনার দক্ষতা রয়েছে সেগুলো Add Language থেকে যোগ করুন। আর প্রতিটি ভাষায় দক্ষতার মাত্রা নির্ধারণ করতে Basic/Conversational/Fluent/Native or Bilingual –এর যেকোনো একটি সিলেক্ট করতে পারেন।

সবশেষে SAVE CHANGES বাটনে ক্লিক করুন।

২) অ্যাকাউন্ট সেটিংসঃ এবার ফাইভারে আপনার অ্যাকাউন্টটি সেটিং করে নিতে ইউজারনেম ডাউন-অ্যারো থেকে সেটিংস > অ্যাকাউন্ট সেটিংস –এ ক্লিক করুন।

ক) ফুল নেম এন্ড ইমেইলঃ কোনো বৈধ পরিচয়পত্র অনুযায়ি আপনার পূরো নাম FULL NAME ফিল্ডে টাইপ করুন। আবার অ্যাকাউন্ট তৈরির সময় যে ইমেইল অ্যাড্রেস ব্যবহার করেছিলেন সেটি চাইলে নতুন কোনো ইমেইল অ্যাড্রেস দিয়ে পরিবর্তন করে নিতে পারেন।

খ) নটিফিকেশনসঃ উক্ত ইমেইলে ফাইভার সংক্রান্ত কি কি নটিফিকেশনস পেতে চান তা এখান থেকে নির্ধারণ করে দিতে পারেন। যেমন ফাইভার ইনবক্স ম‍্যাসেজ, অর্ডার ম্যাসেজ, অর্ডার স্ট্যাটাস-সমূহের নটিফিকেশনস আপনার ইমেইলের ইনবক্সে পেতে চাইলে সেগুলো চেকমার্কড করে দিতে পারেন।


Fiverr Tutorial Part 04 -How to create a fiverr account(02)


৩) সিকিউরিটি সেটিংসঃ ফাইভারে পাসওয়ার্ড পরিবর্তন এবং অর্থ উত্তোলনের নিরাপত্তায় সিকিউরিটি সেটিংস খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সিকিউরিটি ক্যুয়েশ্চনঃ একটি সিকিউরিটি ক্যুয়েশ্চন নির্ধারণ করার মাধ্যমে এ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়। সেজন্য এবার ইউজারনেম ডাউন-অ্যারো থেকে সেটিংস > সিকিউরিটি সেটিংস –এ ক্লিক করুন। উক্ত সেটিংস পেজের SECURITY QUESTION  এর পাশে সবুজ সেট বাটনে ক্লিক করলে যে পেজ আসে সেখানে PLEASE SELECT A QUESTION ডাউন অ্যারো থেকে পছন্দমত একটি প্রশ্ন নির্বাচন করুন এবং তার নিচের ফিল্ডটিতে প্রশ্নটির জন্য একটি উত্তর টাইপ করে Submit বাটনে ক্লিক করুন।

৩) অ্যাকাউন্ট অ্যাকশনঃ ইউজারনেম ডাউন-অ্যারো থেকে সেটিংস > অ্যাকাউন্ট অ্যাকশন ক্লিক করে ফাইভারে লগ-ইন পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা যায় এবং এখান থেকেই চাইলে ফাইভার অ্যাকাউন্ট ডি-অ্যাক্টিভ করা যায়।

প্রোফাইল আপডেটঃ ফাইভারে লগড-ইন থাকা অবস্থায় ইউজারনেম ডাউন-অ্যারো থেকে MY PROFILE- এ ক্লিক করুন। ফলে, ফাইভারে আপনার প্রোফাইলের বর্তমান স্ট্যাটাস দেখাবে, যেখান থেকে অসম্পূর্ণ তথ্যসমূহ আপডেট করতে পারবেন।

প্রথমেই প্রোফাইল ব্যানার থেকে What’s your story in one line?-এর পাশের এডিট আইকনে ক্লিক করে আপনার পেশাগত পরিচয় এক কথায় লিখে SAVE বাটনে ক্লিক করুন করুন।

ডেসক্রিপশনঃ  Edit Description বাটনে ক্লিক করে নিজের সম্পর্কে অতিরিক্ত কিছু তথ্য যোগ করতে পারেন যা বায়ারকে আকৃষ্ট করতে পারে।

লিঙ্কড অ্যাকাউন্টসঃ ফেসবুক, গুগল, ড্রিবল, স্ট্যাক ওভারফ্লো এবং লিংকড-ইন- প্রভৃতি নেটওয়ার্কে  আপনার অ্যাকাউন্ট থাকলে সেগুলো এখান থেকে যুক্ত করতে পারেন। সেজন্য স্ব-স্ব নেটওয়ার্কে ক্লিক করে তাতে লগ-ইন করতে হবে।

স্কিলসঃ এখান থেকে নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ে আপনার পেশাগত দক্ষতা যোগ করতে পারেন। সেজন্য Add New অপশনে ক্লিক করে Add Skill ফিল্ডে আপনার বিশেষ দক্ষতার ক্ষেত্র নির্ধারন এবং Experience Level  ডাউন অ্যারো থেকে দক্ষতার মাত্রা (বিগিনার/ইন্টারমিডিয়েট/এক্সপার্ট) নির্বাচন করে Add  বাটনে ক্লিক করুন। এভাবে একাধিক স্কিল যোগ করা যায়।

এড্যুকেশনঃ এখানে আপনার পড়াশুনা সংক্রান্ত তথ্য সংযুক্ত করে পারেন। Add New অপশনে ক্লিক করে প্রথমে ১) Country of College/University ড্রপডাউন থেকে যেদেশ থেকে পড়াশুনা করেছেন সেটি সিলেক্ট করুন এবং College/University Name ফিল্ডে উক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম ইনপুট করুন। ২) Title ড্রপডাউন থেকে আপনার কোর্সের সাধারণ নাম (B.A./B.Sc./M.A./M.B.A./M.Sc./J.D./M.D./Ph.D.) সিলেক্ট করুন এবং Degree ঐ কোর্সের নির্দিষ্ট নাম ইনপুট করুন। ৩) সবশেষে, From ড্রপডাউন থেকে কোর্স শুরুর সাল এবং To ড্রপডাউন থেকে কোর্স শেষের সাল নির্বাচন করুন।

এভাবে Add New  থেকে প্রতিটি কোর্সের জন্য আলাদা আলাদা তথ্য যোগ করুন।

সার্টিফিকেশনঃ কোনো প্রতিষ্ঠান (একাডেমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ব্যতীত) থেকে অ্যাওয়ার্ড কিংবা সার্টিফিকেট পেয়ে থাকলে তা এখানে যোগ করতে পারেন। সেক্ষেত্রে Add New অপশনে ক্লিক করে CerTificate or Award ফিল্ডে অ্যাওয়ার্ডের নাম ইনপুট করুন।  Certified From থেকে উক্ত প্রতিষ্ঠানের নাম এবং Year ড্রপডাউন থেকে সার্টিফিকেট প্রাপ্তির সাল যোগ করে Add  বাটনে ক্লিক করুন। এক্ষেত্রেও একাধিক অ্যাওয়ার্ড/সার্টিফিকেট যোগ করা যায়।


Fiverr Tutorial Part 05 -How to create a fiverr account(03)


পোর্টফোলিওঃ আপনার করা কোনো প্রজেক্ট বা সম্পূর্ণ কাজ ব্যাক্তিগত বা অন্য কোনো ওয়েবসাইটে থাকলে তার লিংক পেস্ট করে পোর্টফোলিও হিসেবে যোগ করা যায়। সেজন্য Add New  অপশনে ক্লিক করে Description অংশে ঐ প্রজেক্ট সম্পর্কিত বর্ণনা এবং URL অংশে ঐ প্রজেক্টের ওয়েবলিংক পেস্ট করে Add  বাটনে ক্লিক করুন। এভাবে চাইলে একাধিক পোর্টফোলিও যুক্ত করতে পারেন।

 

ফাইভার-এ সার্ভিস সেলিং- আপনার প্রথম গিগঃ

ফাইভার এক্টিভিটিজের এ পর্যায়ে আপনি আপনার প্রফেশনাল স্কিল অর্থাৎ সার্ভিস সেল করার জন্য মোটামুটি প্রস্তুত। সার্ভিস সেল করার জন্য আপনার এক্সপারটাইজের একটি বিশেষায়িত সার্ভিস সম্বলিত গিগ তৈরি করতে হয়। এরকম একটি গিগ তৈরির জন্য ইউজারনেম ড্রপডাউন মেন্যু থেকে Selling> Create A Gig –এ ক্লিক করুন। মূলত ৫টি ধাপে গিগ তৈরির প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়-


Fiverr Tutorial Part 06 -How to create Fiverr Gig


১) Overview: ওভারভিউ ধাপে গিগ-টাইটেল, ক্যাটাগরি, ডেসক্রিপশন, গিগ মেটাডাটা ও ট্যাগস সমন্বয়ে সম্পন্ন হয়।

ক) GIG TITLE: এ ধাপে I Will এর পর সর্বোচ্চ ৮০ ক্যারেক্টারের মধ্যে সার্ভিসসম্বলিত একটি আকর্ষনীয় একটি গিগ-টাইটেল টাইপ করতে হয়। উদাহরণস্বরুপঃ I Will Design An Eye-Catching Business Card. কার্যকরি গিগ-টাইটেল নির্বাচনে কৌশল জানতে পড়ুন- https://www.fiverr.com/academy/tips-tricks/seo-tricks-for-gig-titles

খ) CATEGORY: এক্ষেত্রে আমাদের নমুনা গিগের মেইন ক্যাটাগরি হিসেবে GRAPHICS & DESIGN এবং সাব-ক্যাটাগরি BUSINESS CARDS AND STATIONARY সিলেক্ট করতে হবে।

গ) DESCRIPTION: ১২০ থেকে ১২০০ ক্যারেক্টারের মধ্যে গিগ সম্পর্কিত একটি আকর্ষনীয় বর্ণনা লিখতে হবে।

ঘ) GIG METADATA: এক্ষেত্রে PRODUCT TYPE – BUSINESS CARDS এবং FILE FORMAT – JPG,PNG ও PSD সিলেক্ট করতে পারেন।

ঙ) TAGS: আলোচ্য গিগের জন্য কয়েকটি ট্যাগস হতে পারে- GRAPHIC DESIGN, BUSINESS CARD, CORPORATE BUSINESS CARD, PROFESSINAL BUSINESS CARD ইত্যাদি।

SAVE AND CONTINUE বাটন চেপে দ্বিতীয় ধাপ a-এ যাওয়া যাক-

২) SCOPE & PRICING: এ ধাপে STANDARD, PREMIUM এবং PRO- এ তিনটি প্যাকেজে গিগটিকে উপযুক্ত প্রাইসিং এবং সার্ভিস ডিটেইলস সহকারে সাজাতে হয়। চাইলে প্যাকেজ সুইচ টার্ন-অফ করে একটিমাত্র প্যাকেজ দিয়েও গিগ তৈরি করা যায়।

৩) REQUIREMENTS: এ ধাপে প্রজেক্ট সম্পন্ন করতে বায়ারের কাছে আপনার কি কি রিক্যয়ারমেন্ট আছে তা ৪৫০ ক্যারেক্টারের মধ্যে লিখতে হবে।

৪) GALLERY: গিগ তৈরির এ ধাপে এক বা একাধিক গিগ ফটো অথবা অপশনাল গিগ ভিডিও এবং পিডিএফ ফাইল সংযুক্ত করে গিগটিকে অধিকতর বর্ণনামূলক করে তুলতে হবে।

৪) PUBLISH: এই সর্বশেষ ধাপে PUBLISH GIG বাটন ক্লিক করে গিগটি অ্যাক্টিভেট করতে হয়।

 

আপনার গিগ প্রমোট করবেন যেভাবে

লেখক: নাজমুল হক

পোস্টটি শেয়ার করূন, অন্যজনকে জানতে দিন

Comments are closed.